এই সাইটের কোন লেখা কপি করা নিষেধ

নিশ সাইট ডেভেলপমেন্ট পর্ব ০১ – নিশ সাইট বাজেট

কিছুদিন আগে, অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট বাংলাদেশ গ্রুপে একটি প্রশ্ন করেছিলাম।

প্রশ্ন অনেকটা এমন ছিল যে – “ধরুন, আপনি অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট নিয়ে সবে মাত্র জানতে শুরু করেছেন। আর আপনার কাছে সর্বসাকুল্যে আছে মোট ১০০ ডলার। এখন সেটাকে কিভাবে ইনভেস্ট করবেন। “

২০-৩০ জন এর উত্তর দেওয়ার পর আমি আমার মতামত দিবো ভাবছিলাম। কিন্তু আমার মতামত লিখতে গিয়ে মনে হল বিষয়টা অল্প কথায় হয়তো বোঝানো যাবেনা।

তাই চিন্তা করলাম এই ধরণের প্রশ্নতো কারও একার না। এখন হয়তো কয়েকজনের। কিছুদিন পর আরও মানুষের হতে পারে। তাই একটা বিস্তারিত আর্টিকেল লিখে ফেললেই বোধহয় ভালো হয়।

সেই চিন্তা থেকেই এই আর্টিকেল লেখা শুরু।

এখানে আমি যা বলবো তার সাথে অনেকেরই হয়তো দ্বিমত থাকতে পারে। তাই আপনার কোন ভিন্ন আইডিয়া থাকলে নির্দ্বিধায় কমেন্টে জানানোর জন্যে অনুরোধ করছি।

তো, প্রশ্নের খাতিরে ধরেই নিচ্ছি আমি মাত্র অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে জানতে শুরু করেছি। তাই এ সম্পর্কে আমার তেমন কোন ধারণা নেই।

আমার প্রথম কাজ কি হবে?

এই মুহুর্তে  আমি যদি টাকা ইনভেস্ট করে শেখার চিন্তা করি, তাহলে পুরো টাই বোকামি হয়ে যাবে।

কারণ আমি জানিনা আমার টাকা কোথায় ইনভেস্ট করতে হবে, কিভাবে ইনভেস্ট করতে হবে।

কার কাছে ইনভেস্ট করলে আমি স্টেপ বাই স্টেপ পুরো বিষয়টা শিখতে পারবো সেটাও আমার জানা নেই।

তাই এই মুহূর্তে আমার সবচেয়ে বড় কাজ হচ্ছে অনলাইনে ফ্রিতে যতো রিসোর্স আছে সেগুলো খুঁজে বের করা।

আর কোন কিছু শেখার জন্যে অবশ্যই ভিডিও অনেক সহজ একটি মাধ্যম। তাই অনেকেই প্রথম দিকে ভিডিও টিউটোরিয়ালের দিকে ঝুঁকে পড়েন।

এর অনেকগুলো যৌক্তিক কারণ আছে, তবে আমার অভিজ্ঞতা বলে বেশিরভাগ এক্সপার্টরাই ভিডিও টিউটোরিয়ালের চেয়ে টেক্সট আর্টিকেল লিখতে বেশি পছন্দ করেন।

তাই আমি প্রথমে অনলাইনে অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট নিয়ে যতো রকমের আর্টিকেল গুগলে সার্চ করে পাওয়া যায় একে একে সব পড়ার চেষ্টা করবো। এক্ষেত্রে এলোপাথাড়ি না পড়ে প্রথমে সবগুলা রিসোর্স স্প্রেডশিটে বা পছন্দসই মাধ্যমে সেইভ করে রাখবো। যাতে পরবর্তীতে আর রিসোর্স খোঁজার জন্যে আলাদা সময় ব্যয় করতে না হয়।

এক্ষেত্রে পকেট নামে খুব দারুণ একটি অ্যাপস আছে। ব্রাউজারে পকেটে ইউ আর এল সেইভ করে রাখলে সেটা আপনার অন্য ডিভাইস যেমন – ল্যাপটপ, মোবাইল, ট্যাবলেট ইত্যাদিতে চলে আসবে।

এতে করে যখনই সময় হবে তখনই আপনি পকেট অ্যাপস এর মাধ্যমে আপনার কাঙ্ক্ষিত আর্টিকেল পড়ে ফেলতে পারছেন। এছাড়া বাসে ঝুলতে ঝুলতেও আর্টিকেল গুলো শেষ করতে পারেন।

ভাবছেন কিভাবে?

পকেটে টেক্সট টু স্পিচ সুবিধাও আছে। আপনি সেটার মাধ্যমে হেড-ফোন কানে দিয়ে ঝুলতে ঝুলতেই পুরো আর্টিকেলটা শুনে নিতে পারবেন।

হাতে ফ্রি সময় থাকলে একটানা যতো বেশি আর্টিকেল পড়া যায় ততোগুলো পড়ার চেষ্টা করবো। যদি সময়ের স্বল্পতা থাকে তাহলে প্রতিদিন ২-৩টা করে আর্টিকেল পড়লেও দেখা যাবে এক মাস শেষে আমি প্রায় ৫০-৬০টা আর্টিকেল পড়ে শেষ করেছি। আর পুরো বিষয়ের উপর অনেক ভালো একটা আইডিয়াও পেয়ে গিয়েছি।

নিশ সাইট ডেভেলপমেন্ট পর্ব ০১ - নিশ সাইট বাজেট

আমার দ্বিতীয় কাজ কি হবে?

এখন যেহেতু আমি অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মূল বিষয় সম্পর্কে মোটামোটি আইডিয়া পেয়েছি এবার আমি চেষ্টা করবো ভিডিও টিউটোরিয়াল কি কি আছে সেগুলো দেখার।

যদিও ইউটিউবে পাওয়া সব টিউটোরিয়াল ওইভাবে দেখার যোগ্য না। তাই ভিডিও দেখার আগে এর থাম্বস আপ সংখ্যা, ভিউ কাউন্ট, পজিটিভ কমেন্ট দেখে সন্তোষজনক মনে হলে এরপরেই কেবল সেই ভিডিওটা দেখবো।

কারণ যার তার ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে মাথা নষ্ট করার কোন ইচ্ছাই আমার নেই।

আর আমাদের দেশে অনেকেই অনলাইন মার্কেটিং নিয়ে বাংলায় ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করেন।

আমি সবাইকে বলছিনা, তবে ট্রাস্ট মি বেশিরভাগ টিউটোরিয়াল যারা তৈরি করে তাদের নিজেরই এই বিষয় সম্পর্কে ভালো ধারণা নেই। তারা তাদের নিজেদের অনেক মনগড়া যুক্তি এবং ভুল ধারণা সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেন নিজের অজান্তেই।

আর সেগুলো দেখে মাথা নষ্ট হয় সাধারণ মানুষের।

তাই প্রথম দিকে আমি ইংরেজিগুলোই দেখার চেষ্টা করবো। আর টুকটাক বাংলা টিউটোরিয়াল দেখার চেষ্টা করবো যা শিখছি তার সাথে মিল পাচ্ছি কিনা।

এভাবে প্রতিদিন ১-২টা করে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখার চেষ্টা করবো। আর এর ফাকে ফাকে আর্টিকেল পড়াও অব্যাহত রাখবো।

এভাবে ২ মাস পার হয়ে গেলে আমার খুব ভালো একটা গ্রিপ তৈরি হয়ে যাবে। এবার আমি জানি আমাকে শিখতে হবে

এই পর্যন্ত যদি পড়ে থাকেন তাহলে আমার মতোই আপনি অলরেডি জেনে গেছেন নিশ সাইট তৈরির আগে আপনাকে ঠিক কি কি বিষয় শিখতে হবে।

এখানে একটা বিষয় লক্ষণীয়, আমি আগেই উল্লেখ করেছি আমাদের বাজেট ১০০ ডলার। তাই চাইলেও আমরা অনেক পেইড জিনিস নিতে পারবোনা।

আমাদেরকে চেষ্টা করতে হবে কিভাবে বিনামূল্যে/অল্প-মূল্যে সে কাজটা করে নেয়া যায়।

যেমন- নিশ সাইট শুরু করার সময় সবারই একটা কমন চিন্তা-ভাবনা থাকে যে লং টেইল প্রো কিনতে হবে। কিন্তু আমার মতে নবীন হিসেবে প্রথমেই কিনে নেয়া উচিৎ হবেনা।

লং টেইল প্রো দিয়ে যা যা করা যায় ঠিক তাই আপনি ম্যানুয়ালিও করতে পারবেন। শুধু সময়টাই একটু বেশি লাগবে। সময় হলে এ বিষয়ের উপর বিস্তারিত  পোস্ট লেখার চেষ্টা করবো।

Comments (No)

Leave a Reply