এই সাইটের কোন লেখা কপি করা নিষেধ

ফেসবুক একাউন্ট থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ( ৫ ইনকামের মাধ্যম )

ফেসবুক থেকে আয়ের নিয়ম – ঘরে বোসে অনলাইনে আয় করার এমনিতে অনেক ভালো ভালো পদ্ধতি আমাদের কাছে রয়েছে।তাদের মধ্যে, ব্লগ থেকে আয় করা এবং ইউটিউবের থেকে অনলাইন ইনকাম করা সব থেকে লাভ জনক এবং দ্রুত সফলতা পাওয়ার মাধ্যম বলে আমি আগেই বলেছি। কিন্তু, আপনারা খুশি হবেন এইটা জেনে যে, “আপনি একটি ফেসবুক একাউন্ট খুলেও অনলাইন আয় করতে পারবেন”। মানে, ফেসবুকের মাধ্যমে টাকা আয় করাটাও এখন সম্ভব। এবং, তাই “ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়“, এবেপারে আমি আপনাদের ৫ টি ইনকামের মাধ্যম বা নিয়ম বলবো।(How to make money from Facebook ?)

আমরা সবাই জানি, Facebook বিশ্বের সব থেকে বড়ো সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট। এই social media সাইটের মাসে ২.২ বিলিয়ন রেজিস্টার্ড একটিভ ইউসার রয়েছে। এবং এই সংখ্যা বেড়েই যাচ্ছে।

এবং, এই ফেসবুকে আমরা একাউন্ট বানিয়ে দিনের পর দিন, চ্যাটিং (chatting) করে এবং অন্যদের স্টেটাস (status) দেখে সময় নষ্ট করি। কিন্তু, আপনি চাইলে, এই বিশ্বের সব থেকে বিখ্যাত social media website টিকে টাকা আয় করার উপায় বানিয়ে এর লাভ নিতে পারবেন।

কিন্তু, সত্যি কথা বলতে গেলে, ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা এমনিতে সোজা কাজ নয়। এবং, এর দ্বারা আপনি সহজে অনলাইন আয় করতে পারবেননা। তাও, আপনি যদি online income করার একটি নতুন উপায় খুঁজছেন, তাহলে এবেপারে নিচে অবশই জেনেনিতে পারেন।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ? (৫ টি আয়ের পদ্ধতি)

আমি আগেই বলেছি, ফেইসবুক একাউন্ট খুলে আয় করা তেমন একটি সোজা কাজ নয় কিন্তু, ইন্টারনেটে এমন কয়েকটি প্রমাণিত উপায় রয়েছে, যেগুলি ব্যবহার করে ফেসবুকের মাধ্যমে আয় বা ইনকাম করা যেতে পারে। এবং অনেকেই করছে।

তাই, ইন্টারনেট এবং অনেক জায়গার থেকে সংগ্রহ কোরে, আমি আপনাদের এমন ৫ টি পদ্ধতি বলবো, যেগুলি ব্যবহার কোরে আপনারা Facebook কে অনলাইন আয়ের মাধ্যম বানিয়ে নিতে পারবেন।

১. ফেসবুক মার্কেট প্লেস (Facebook market place)

আপনাদের মধ্যে হয়তো অনেকেই Facebook market place এর ব্যাপারে জানান ? তাইতো ?

ফেসবুকের এই সার্ভিস দ্বারা, আপনি যেকোনো product, service বা offer এখানে লিস্ট করতে পারবেন এবং লোকেদের দেখাতে পারবেন। এইটা, একটি online shopping website এর মতোই, যেখানে যেকোনো ফেসবুক একাউন্ট থাকা ব্যক্তি নিজের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে বেচা কেনা করতে পারবে এবং তার দ্বারা টাকা কমাতে পারবেন।

সোজা ভাবে বললে, আপনি যদি কিছু বিক্রি করতে চান, তাহলে ঘরে বসেই “Facebook মার্কেট প্লেসের” দ্বারা সেই জিনিষটির বিজ্ঞাপন হাজার হাজার লোকেদের ফেসবুকের মাধ্যমে দেখিয়ে দিতে পারবেন।

এতে, ঘরে বসেই আপনি আপনার প্রোডাক্টের জন্য কাস্টমার (customer) পেতে থাকবেন এবং আপনার লাভ হতে থাকবে।

Market place দ্বারা টাকা কিভাবে কমাবেন ?

আপনার সর্ব প্রথমে করতে হবে যে, একটি ভালো এবং চাহিদা থাকা পণ্য (product) কোনো wholesaler বা কম দামে দেয়া দোকান থেকে কিনতে হবে। যেমন, সুন্দর সুন্দর কানের দুল, স্টাইলিশ (stylish) শাড়ী, ছেলেদের কাপড় বা যেকোনো প্রোডাক্ট যার মার্কেটে চাহিদা অনেক।

তারপর আপনার নিজের ফেসবুক একাউন্ট থেকে “Facebook market place” এ গিয়ে প্রোডাক্টের ছবি, ডিটেলস, নিজের মোবাইল নম্বর এবং দাম সহ সবটাই মার্কেট প্লেস এ দিয়ে দিতে হবে।

আপনি নিজের প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন ফ্রীতেই দিতে পারবেন।

এখন, আপনার দেয়া বিজ্ঞাপন আপনি নিজের ফেসবুক গ্রুপ, প্রোফাইল এবং “promote ad” অপশনের দ্বারা যেকোনো শহর, দেশ বা লোকাল জায়গায় দেখাতে পারবেন।

এখন, আপনার দেয়া বিজ্ঞাপন বা প্রোডাক্ট যদি কারো ভালো লাগে, তাহলে সে আপনাকে ডাইরেক্ট মোবাইল নম্বরে ফোন করে দামাদামি বা প্রোডাক্ট এর বেপারে কথা বলতে পারবে।

বিশ্বাস করুন, এরকম ফেসবুক বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে লোকেরা ঘরে বসেই নিজের অনলাইন ব্যবসা চলিয়ে টাকা ইনকাম করছেন।

আপনিও পারবেন। মনে রাখবেন, অনলাইন ব্যবসার মূল মন্ত্র হলো চাহিদা এবং কম দাম। আপনি যদি, চাহিদা থাকা কোনো প্রোডাক্ট লোকাল মার্কেট থেকে কম দামে বিক্রি করেন, তাহলে সেই product এর বিজ্ঞাপন দিয়ে ফেসবুক থেকে আপনি অনেক কাস্টমার পেয়ে যাবেন। বিশেষ করে আপনার লোকাল এরিয়া বা জায়গার থেকে কাস্টমার পাওয়া অনেক সোজা।

আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে বিশেষ কোরে আপনার শহরের বা আসে পাশে থাকা লোকেরাই  ফ্রেন্ডস (friends) হিসেবে আপনার সাথে জড়িত। তাই, সেই ফ্রেন্ডস দেড় আপনি আপনার কাস্টমার বানিয়ে নিতে পারবেন। এবং তাই, প্রোডাক্ট বা জিনিস ডেলিভারি (delivery) দিতেও আপনার কোনো অসুবিধে হবেনা।

২. ভিডিও আপলোড কোরে আয় করুন (Ads breaks)

আপনারা ফেসবুকের নতুন “video monetization” এর বেপারে শুনেছেন কি না তা আমি জানিনা। কিন্তু, Facebook video monetization বা ads break ফেসবুকের তরফ থেকে এমন একটি নতুন প্রক্রিয়া বা সার্ভিস যার দ্বারা আপনি ফেসবুক ফ্যান পেজে ভিডিও আপলোড কোরে আনলিমিটেড (unlimited) ইনকাম করতে পারবেন। চলুন এবেপারে আরো জেনেনেই।

Facebook Ads breaks বা video monetization কি ?

আসলে Facebook ads breaks হলো ছোট্ট ছোট্ট বিজ্ঞাপন, যেগুলি আপনারা নিজের ভিডিওতে দেখাতে পারবেন এবং তার থেকে টাকা আয় কোরতে পারবেন।

আপনি ভিডিও নিজের ফেসবুক পেজে আপলোড করতে হবে এবং এই মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য আপনার একটি ফেসবুক ফ্যান পেজের দরকার হবে।

মনে রাখবেন, আপনি নিজের Facebook profile এ আপলোড করা ভিডিওতে এই ads breaks বা বিজ্ঞাপন লাগাতে পারবেননা।

হে, পুরোটাই YouTube channel এর মতোই। ইউটিউবে যেরকম আমরা ভিডিও আপলোড কোরে তাতে Google adsense এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় কোরি।ঠিক তেমনি, Facebook পেজে নিজের বানানো ভিডিও আপলোড কোরে, ads breaks এর মাধ্যমে তাতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় কোরতে পারা যাবে।

কিন্তু, যেরকম ইউটিউবের থেকে আয় করার আগে আমাদের কিছু নিয়ম কানুন বা প্রয়োজনীয়তা মানার দরকার, ঠিক তেমনি ফেসবুক পেজে ভিডিও আপলোড কোরে টাকা আয় করার জন্য আপনার কিছু নিয়ম বা প্রয়োজনীয়তার প্রয়োজন হবে।

Ads breaks এর ব্যাপারে আমি সবটাই এখানে ভালো কোরে বলেছি – ফেসবুকে ভিডিও আপলোড কোরে ইনকাম করুন (ads breaks).

৩. Affiliate marketing এর মাধ্যমে আয়

এমন একটি শব্দ বা বিষয়, জেবেপারে প্রত্যেকটি ব্লগার বা ইউটিউব চ্যানেল মালিকেরা জানেন। অনলাইন টাকা আয় করার এ সবচেয়ে লাভকজনক এবং কাজে আশা উপায়। এফিলিয়াট মার্কেটিং দ্বারা আজ অনেকেই হাজার হাজার টাকা ঘরে বসেই আয় করছেন।

আসলে, “এফিলিয়েট মার্কেটিং” এমন একটি উপায় বা মাধ্যম যার দ্বারা আপনি ইন্টারনেটে থাকা অনেক রকমের “online shopping website” থেকে যেকোনো জিনিস বা product নিজের ব্লগ, ইউটিউবের চ্যানেল বা ফেসবুকের ফ্যান পেজে দেখিয়ে কিংবা তাদের প্রোমোট কোরে কমিশন (commission) প্রাপ্ত করতে পারবেন।

বরো বরো অনলাইন শপিং সাইট যেমন, Amazon, Flipkart বা snapdeal তাদের যেকোনো প্রোডাক্ট এফিলিয়েট লিংকের দ্বারা লোকেদের সাথে শেয়ার বা প্রোমোট করার সুযোগ আমাদের দেয়।

এবং, যখন আমাদের শেয়ার করা প্রোডাক্ট এর লিংক থেকে কেও সেই অনলাইন ওয়েবসাইট থেকে কিছু কেনা কাটা করেন তখন আমরা কিছু কমিশন টাকা কমিয়ে নেই।আয় করা কমিশন (commission) আলাদা আলাদা প্রোডাক্টের জন্য আলাদা আলাদা হতে পারে।এটাই হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং।

এখন, আপনার যদি একটি ফেসবুক ফ্যান পেজ (Facebook page) আছে এবং তাতে অনেক লাইক (like) আছে বা একটি ফেসবুক গ্রুপ (Facebook group) আছে তাহলে সেই পেজে বা গ্রুপে অনেক রকমের প্রোডাক্টের এফিলিয়েট লিংক শেয়ার করতে পারবেন।

এবং, যখনি কেও আপনার শেয়ার করা প্রোডাক্টের লিংক থেকে কিছু কিনবে, তখন আপনি যেই ওয়েবসাইট থেকে এফিলিয়েট লিংক শেয়ার করেছেন, তাদের তরফথেকে commission আয় করবেন। এফিলিয়েট মার্কেটিং ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার একটি ভালো উপায় আপনার জন্য প্রমাণিত হতে পারে।

খুশির কথা এটাই যে, আজকাল যেকোনো অনলাইন শপিং সাইটে আপনি নিজেকে affiliate marketer হিসেবে রেজিস্টার কোরতে পারবেন এবং তাদের যেকোনো প্রোডাক্ট শেয়ার করে আয় করতে পারবেন।

কিছু বিখ্যাত এফিলিয়েট প্রোগ্রাম গুলো

  • Amazon affiliate program 
  • Ebay affiliate program 

৪. Direct local Product advertising

আপনার ফেসবুক একাউন্টে যদি অনেক ফ্রেন্ডস আছে, একটি গ্রুপ আছে কিংবা আপনার একটি ফেসবুক ফ্যান পেজ (fan page) আছে যেখানে হাজার হাজার লাইক (like) রয়েছে, তাহলে তাতে লোকাল প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আপনি আয় করতে পারবেন।

আপনি যেকোনো বিজ্ঞাপন দেখাতে পারবেন, যেকোনো নতুন দোকানের বিজ্ঞাপন, কোনো জায়গা, রেস্টুরেন্ট বা আপনার আসে পাশে থাকা যেকোনো মার্কেটের বিজ্ঞাপন নিজের ফেসবুক পেজ বা প্রোফাইলে দেখিয়ে আয় করতে পারবেন।

এভাবে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার জন্য, আপনার সবচেয়ে প্রথমে, যারা বিজ্ঞাপন দেখতে চান তাদের খুঁজে বের করতে হবে। নিজের আসে পাশে থাকা দোকান গুলোতে গিয়ে জিগেশ করতে পারেন যে তারা আপনার ফেসবুক পেজে কিছু বিজ্ঞাপন দেখাতে চান নাকি।

মনে রাখবেন, আজকাল সোশ্যাল মিডিয়াতে হাজার হাজার লোকেরা অনলাইন থাকে। এবং, ফেসবুক (Facebook) যেকোনো জিনিসের জন্য বিজ্ঞাপন দেখানোর বা যেকোনো জিনিস প্রোমোট করার অনেক লাভ জনক মাধ্যম।

তাই, আপনার ফেসবুক পেজে যদি ১০ থেকে ৫০ হাজারের মধ্যে লাইক থাকে তাহলে আপনি সহজে অনেক লোকাল advertiser পেয়ে যাবেন যারা আপনার ফেসবুক পেজে লোকাল বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য আপনাকে টাকা দিবে।

এর বাইরেও, অনেক ইউটিউবের চ্যানেল মালিক এবং ব্লগের মালিক রয়েছে যারা আপনার ফেসবুক পেজে তাদের ভিডিও বা ব্লগের বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য আপনাকে টাকা দিতে পারে। এতে, তারা নিজের ব্লগ আর্টিকেল বা ইউটিউবের ভিডিওতে ফ্রীতেই সোশ্যাল ট্রাফিক (social traffic) পেয়ে যাবে। কিন্তু, প্রথমে আপনার প্রথমে এমন ব্লগ মালিকদেড় খুঁজে বের করতে হবে যারা নিজের ব্লগে সোশ্যাল ট্রাফিক কিনতে চান।

৫. ফেসবুক পেজ বিক্রি করুন

অনেক ব্লগার বা ইউটিউবের চ্যানেল মালিকেরা নিজের ব্লগ বা চ্যানেলের প্রোমোশনের (promotion) জন্য অনেক রকমের ফেসবুক পেজ কিনতে চান।যদি আপনার Facebook page এ ভালো সংখ্যায় লাইক (likes) আছে, তাহলে সেই পেজ আপনি ভালো দামে বিক্রি করে টাকা কমিয়ে নিতে পারবেন। আপনি যে আপনার পেজ টি বিক্রি করতে চান এবেপারে আপনি একটি পোস্ট নিজের ফেসবুক গ্রুপ,  বা একাউন্টে দিয়ে দেখতে পারেন।

এর বাইরেও, ফেসবুকে অনেক কেনা/বেচা (buy/sell) গ্রুপ রয়েছে যেগুলিতে গিয়ে আপনি নিজের পেজ বিক্রি করার বিজ্ঞাপন / পোস্ট দিতে পারেন।এবং, যদি কেও আপনার পেজ কিনতে চান, তাহলে সে আপনাকে ডাইরেক্ট ফেসবুকের মাধ্যমে কন্টাক্ট (contact) করতে পারবে।

Comments (No)

Leave a Reply