এই সাইটের কোন লেখা কপি করা নিষেধ

গুগল শব্দটার অর্থ কি ?গুগল কেন হল ?

গুগল কি ?এ প্রস্নের উত্তর তো আপনারা সবাই জানেন বা বলতে পারবেন যে এটা একটা সার্চ ইঞ্জিন যেখান থেকে আমরা বিভিন্ন তথ্য খুঁজে বের করতে পারি। কিন্তু গুগল শব্দটার অর্থ কি ?Google কেন হল ?

গুগল এলএলসি (ইংরেজি: Google LLC) বা গুগল লিমিটেড লায়াবেলিটি কোম্পানি ইন্টারনেটভিত্তিক সেবা ও পণ্যে বিশেষায়িত একটি আমেরিকান বহুজাতিক প্রযুক্তি কোম্পানি। স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ছাত্র থাকাকালীন ল্যারি পেজ ও সের্গেই ব্রিন ১৯৯৮ সালে গুগল নির্মান করেন। গুগলের ১৪ শতাংশ শেয়ার তাদের এবং বিশেষ সুপারভোটিং ক্ষমতার মাধ্যমে ৫৬ শতাংশ স্টকহোল্ডারকে নিয়ন্ত্রণ করে। সেপ্টেম্বর ৪, ১৯৯৮ সালে তারা গুগলকে প্রাইভেট কোম্পানি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে। গুগল আগস্ট ১৯, ২০০৪ সালে ইনিশিয়াল পাবলিক অফারিং (আইপিও) দেয় ও গুগলপ্লেক্স নামে মাউন্টেইন ভিউতে তাদের নতুন সদরদপ্তরে স্থানান্তরিত হয়। আগস্ট ২০১৫ সালে গুগল এর বিভিন্ন কার্যক্রম আলফাবেট ইনকর্পোরেটেড নামে সমন্বিত করার পরিকল্পনার কথা জানায়। আলফাবেটের প্রধান অধীনস্থ সংগঠন হিসেবে আলফাবেটের ইন্টারনেট কার্যক্রম পরিচালনা করবে। পুনগঠনের সমাপনী অংশ হিসেবে সুন্দর পিচাই গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে ল্যারি পেজকে প্রতিস্থাপন করেন। (ল্যারি পেজ এখন আলফাবেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা)

গুগলের প্রধান সেবা গুগল সার্চ ছাড়াও নতুন পণ্য, অধিগ্রহণ ও অংশীদারত্বের সাথে সাথে কোম্পানিটির দ্রুত প্রসার হয়। কাজ ও প্রোডাক্টিভিটি সেবা (গুগল ডক, শিট ও স্লাইড), ইমেইল (জিমেইল/ইনবক্স), সময়সূচী ও সময় ব্যবস্থাপক (গুগল ক্যালেন্ডার), ক্লাউড স্টোরেজ (গুগল ড্রাইভ), সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (গুগল+), ইন্সট্যান্ট ম্যাসেজিং ও ভিডিও চ্যাট (গুগল এলো/ডুও/হ্যাংআউট), অনুবাদক (গুগল ট্রান্সলেট), মানচিত্র (গুগল ম্যাপস/ওয়েজ/আর্থ/স্ট্রিট ভিউ), ভিডিও ভাগাভাগি (ইউটিউব), নোট নেওয়া (গুগল কিপ), এবং ছবি ব্যবস্থাপক (গুগল ফটোজ) প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য উদাহরণ।

গুগল সারা পৃথিবীতে বিভিন্ন ডেটা সেন্টারে প্রায় এক মিলিয়ন সার্ভার চালায় ও এক বিলিয়নের উপর অনুসন্ধানের অনুরোধ এবং প্রায় ২৪ পেটাবাইট ব্যবহারকারী কর্তৃক তৈরী ডেটা প্রক্রিয়াকরণ করে প্রতিদিন। ২০০৯ সালের সেপ্টেম্বর অনুযায়ী এলেক্সা আমেরিকার সবচেয়ে বেশী ব্যবহার করা ওয়েবসাইটের তালিকায় স্থান দেয় গুগলকে। এছাড়াও গুগলের অন্যান্য আন্তর্জাতিক সাইট যেমন ইউটিউব, ব্লগার এবং অরকুট সেরা একশটি সাইটে স্থান পায়। ব্রান্ডয্ তাদের ব্রান্ড ইকুইটি ডাটাবেজে গুগলকে ২য় স্থান দেয়। গুগলের আধিপত্য বিভিন্ন সমালোচনার জন্ম দিয়েছে যেমন কপিরাইট, গোপনীয়তা এবং সেন্সরশিপ প্রভৃতি।

গুগল শব্দটার অর্থ বর্তমানে সার্চ করি বলা হয়।আমরা যে কোন কিছু সার্চ করার জন্য গুগল কে ব্যবহার করে থাকি ।এজন্য আমরা কোনো কিছু না পেলে বলি গুগল কর তার মানে সার্চ করো। কিন্তু আসলেই গুগল শব্দের একটা অর্থ আছে।কিন্তু অর্থটা  কি ?আমরা যেরকম ওয়ান এর পাশে যদি ২ টা শূন্য দেই তাহলে যে সংখ্যাটা পায় আমরা বলি শত বা পাশে যদি আমরা ৩ টা শূন্য দেই এটা হচ্ছে হাজার। ওয়ান পাশে আমরা পাঁচটা শূন্য দেই এটাকে আমরা বলি লাখ।এরকম  ওয়ান এর পাশে যদি ৭ টা শূন্য দেই  এটাকে আমরা বলি কোটি। মানে আমরা শূন্য সংখ্যার উপর নির্ভর করে আমরা একটা সংখ্যার স্থানীয় নাম জানি। ঠিক একই রকমভাবে ওয়ান এর পিছে যদি আমরা ১০০ শূন্য বসায় তাহলে কি হবে ?তাহলে যে সংখ্যা পাওয়া যাবে সেটার নাম হচ্ছে গুগল ।তার মানে এটা কি আমরা লিখতে পারি টেন টু দি পাওয়ার হান্ড্রেড।তারমানে ওয়ান এর পিছে যদি আমরা ১০০ শূন্য বসায় তাহলে যে সংখ্যাটা পাব সেটা কে বলা হয় গুগল তারমানে গুগোল হচ্ছে আসলে একটা সংখ্যার স্থানীয় নাম ।আর এ সংখ্যা টি আবিষ্কার করেন কাসনার নামের একজন গণিতবিদ। প্রথম তিনি এ বলেন যে এক এর পরে ১০০ টা শূন্য দিলে  একটা সংখ্যা হবে সেই সংখ্যাটা নাম হচ্ছে গুগল এবং গুগল এই কথাটা বলেছিল কাসনারের নয় বছরের নাতী।এখানে একটা জিনিস মনে রাখা ভালো যে গুগোল  এই সংখ্যাটা এত বড় যে আমাদের পৃথিবীর সব অণু-পরমাণু যদি আমরা গুনে ফেলি তাহলে এর চেয়ে ছোট হবে কারণ বিজ্ঞানীরা এ পর্যন্ত যে তথ্য দিয়েছেন যে বিশ্ব ব্রক্ষ্মাণ্ডের অণু পরমাণুর সংখ্যা হচ্ছে টেন টু দি পাওয়ার এইটি থেকে টেন এর মধ্যে।তার মানে ওয়া এরপ রে ৮০-১০ পর্যন্ত যে শূন্য হয় ওগুলো অণু-পরমাণু হবে ।সুতরাং গুগোল টা অনেক বড় একটা সংখ্যা।

এখন এখানেই শেষ না আমরা আরেকটা নাম জানি গুগল কোম্পানির সাথে জড়িত সেটা হচ্ছে গুগল প্লেক্স। গুগল প্লেক্স একটা সংখ্যার নাম। সে সংখ্যাটা কী? সেটা হচ্ছে ওয়ান এর পরে যদি আমরা গুগল সংখ্যক শুন্য বসাই তাহলে যে সংখ্যা পাওয়া যাবে সেটা হচ্ছেগুগল প্লেক্স।তারমানে এটা আরো বিশাল সংখ্যা যেটা স্পর্শ করা আসলেই খুব কঠিন বা অসম্ভব বলা যেতে পারে। 

Comments (No)

Leave a Reply