এই সাইটের কোন লেখা কপি করা নিষেধ

Youtube থেকে সালমান মুক্তাদিরের মাসিক আয় প্রায় ৫ লক্ষ টাকা

ইউটিউব ব্যবহার করেন অথচ সালমান মুক্তাদিরকে চেনেন না এরকম লোক খুব কমই পাওয়া যাবে। তরুণ এই ইউটিউবার ইউটিউবে মজার ভিডিও প্রকাশ করার মাধ্যমেই লাইম লাইটে আসেন।

সালমান মুক্তাদির ইউটিউব ছাড়াও বিভিন্ন টেলিভিশনের নাটক, বিজ্ঞাপন ও টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। তার ইউটিউবে সাড়ে চার লাখের অধিক ফলোয়ার রয়েছে। সালমান মুক্তাদিরকে ইউটিউব থেকে আয় করা প্রথম বাংলাদেশী বলা হয়।

তিনি ইউটিউবের সালমান:

স্কুলের দশটা শ্রেণি টপকাতে সালমান মুক্তাদিরকে পাড়ি দিতে হয়েছে ১২টি স্কুল। এই একটি তথ্য সালমান মুক্তাদির সম্পর্কে যথেষ্ট নয়। তাঁর সম্পর্কে আরও অসংখ্য খবর আছে। যা শুনে চমকাতে হয়েছে বারবার।চমক অবশ্য হরহামেশাই দিয়ে থাকেন সালমান। যাঁরা ইউটিউবে নিয়মিত ঢুঁ মারেন তাঁদের কাছে সালমান পরিচিত মুখ। মজার মজার ভাবনা আর দারুণ সব ভিডিওর নিয়ে হাজির হন তিনি।

সমাজের নানা ধরনের অসংগতি উঠে আসে তাতে।সম্প্রতি প্রথম আলোর কার্যালয়ে আসেন তিনি। শোনালেন ইউটিউবের সালমান হয়ে ওঠার গল্প, ‘আমি পড়াশোনায় খুবই দুর্বল ছিলাম। স্কুলে নবম ও দশম শ্রেণিতে পড়ার সময় বিভিন্ন পরীক্ষায় ২১ বার ফেল করেছিলাম।

আর এইচএসসিতে হিসাববিজ্ঞানে দুই বছরে ফেল করেছিলাম ২২ বার। আমার কাছে টেনেটুনে পাস করাটাই ছিল সবচেয়ে বড় আনন্দ। অবশ্য পড়াশোনার জন্য পরিবার থেকে কম চাপ দেওয়া হয়নি। এমনও হয়েছে মেঘনা নদীর পাশে বাবার অফিসের কাছে আমাকে আটকে রাখা হয়েছে শুধু পড়াশোনার জন্য। জানি এসব আমার ভালোর জন্যই করা হচ্ছে।

কিন্তু পড়াশোনা মোটেও ভালো লাগত না। তো এভাবে ২০১২ সালে কোনোভাবে এইচএসসি পাস করে পুরা “হোপলেস” হয়ে গেলাম। গেলাম অস্ট্রেলিয়া। উদ্দেশ্য অ্যাকাউন্টিং নিয়ে পড়াশোনা করা। কিন্তু হলো না। দেশে ফিরে এসেছি। তখনই ভিডিও বানানোর পোকা মাথায় ঢোকে। শুরুতে আমার গিটার বাজানোর একটা ভিডিও আপ করি। সবাই বেশ প্রশংসা করে। শেয়ারও করে।

আমি প্রথম ভিডিও বানিয়েছিলাম নোকিয়া এন ৯৫ মডেলের মুঠোফোন দিয়ে।’এবার একটু দম নিলেন সালমান। কফির কাপে চুমুক দিয়ে শেষ করেন বাকিটা। না কফি নয়, নিজের গল্প শেষ করেন তিনি: ‘তারপর একে একে ঢাকা গাইজ, রমাদান প্রবলেম, ইন্টারনেট সেনসেশনসহ বিভিন্ন শিরোনামে অসংখ্য ভিডিও দেওয়া হয় আমার দুটি চ্যানেলে।’তালিকাটা বেশ লম্বা। কারণ সালমানের ইউটিউবে আছে দুটি চ্যানেল। একটির নাম ‘সালমান দ্য ব্রাউন ফিশ’, আরেকটি ‘সালমান দ্য পুটি মাছ’। এর প্রথমটাতে আছে ৪৩ টি আর দ্বিতীয়টিতে ৫৩টি ভিডিও।

এখনো প্রতিটি ভিডিও নিজে বানান। ভাবনা থেকে শুরু করে সমাধান পর্যন্ত। ভিডিওতে অভিনয় করেন অনেকেই। নামীদামি মডেল থেকে শুরু করে নিজের মাকে নিয়ে এসেছেন অভিনয়শিল্পীর তালিকায়। এসব ভিডিও শেয়ার হয়েছে লাখ লাখ বার।এখানেই শেষ নয়, গত সেপ্টেম্বর মাসে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ইউটিউব উৎসবে আমন্ত্রিত হয়ে যান সালমান।

বিশ্বের আরও অনেক ইউটিউবারের সঙ্গে দিনব্যাপী নানা আয়োজনে মেতে ছিলেন তিনি। সে অভিজ্ঞতাও জানিয়েছেন এরই মধ্যে।ভিডিওর ভাবনা নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি যখন চারপাশে হাঁটি, তখনই ভাবনা পেয়ে যাই। আমার সব ভাবনা বাস্তব জীবন থেকে নেওয়া।’সালমান শুধু এসবের মধ্যে সীমাবদ্ধ নন। ধীরে ধীরে হাত পাকাচ্ছেন নির্মাণেও। ১২টি বিজ্ঞাপনচিত্র বানিয়েছেন। যা অনলাইনে বিভিন্ন পণ্যের প্রচারণায় ব্যবহার করা হচ্ছে। সমানতালে নাটকেও অভিনয় চলছে।

এখন বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে ঝালমুড়ি, তিনকন্যা, নাইন অ্যান্ড এ হাফ ধারাবাহিক নাটক। এবার ঈদে মাস্তি আনলিমিটেড নাটকে অভিনয় করে হুলুস্থুল ফেলে দেন তিনি। কথা হয়েছে সিনেমায় অভিনয়ের ব্যাপারেও।তবে আলাপ শেষ করার আগে নিজের সম্পর্কে আরও কয়েকটি তথ্য দেন তিনি।

১. প্রতিদিন খুব ভোরে ঘুম থেকে ওঠেন তিনি। আর শরীর ঠিক রাখতে প্রতিদিন আটটা ডিম, দুইটা কলা আর এক গ্লাস দুধ খান।

২. এখন পর্যন্ত ইউটিউব থেকে আয় করেছেন প্রায় ৭০ লাখ টাকা।

৩. বিয়ে করার জন্য ‘নির্দিষ্ট বয়স’ কোনটা, এটা নিয়ে পরিবারের সঙ্গে অনেক ঝগড়া করেছেন। খুব তাড়াতাড়ি শুভকাজটা সারতে চান তিনি।

৪. সম্প্রতি ‘অভদ্র প্রেম’ শিরোনামের গানের অশ্লীল ভিডিও প্রকাশ করে ব্যপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির।  এতে করে সালমান মুক্তাদির ইউটিউব এর সাবস্ক্রাইব প্রতি সেকেন্ডে কমছে । তা না হলে তার ইউটিউবের সাবস্ক্রাইব ২০ লাখ ছাড়িয়ে যেত।

Comments (No)

Leave a Reply