Freelancing এ ব্যর্থতার কারণ ও কয়েকটা সহজ উপায়

Freelancing নিয়ে অনেকের অনেক রকম ধারনা আছে। but freelancing হচ্ছে BPO (Business Process Outsourcing ) এর একটা অংশ। Internet এ ব্যাপক লিখা পাবেন এ বিষয়ে। call center , freelancing এ গুলু Bpo এর part. Freelancing হচ্ছে কোন ব্যাক্তি বা কম্পানির কাছে আপনি কোন কাজ শর্ত আরোপের মাধ্যমে নিবেন এবং সঠি্ক সময়ের মধ্যে submit করবেন। কিন্ত আমরা freelancing বলতে শুধু odesk, freelancer, কিনবা elance কে ই বুঝাই। কিন্তু বাস্তব আলাদা। freelancing এর আরো অনেক সুযোগ রয়েছে online এ। তবে odesk , freelancer , elance is best outsourcing market palce in web market. so you can go with them , but you have to learn it first. Proffesional কাজ না শিখে odesk , freelancer এ কাজ এর জন্য bid করবেন না।

এর চেয়ে এই উপায়গুলা apply করে দেখতে পারেন।

images

১। Page review system:

হ্যাঁ, এটিই নতুন দিনের আয় রোজগার মাধ্যম, এখন আপনি টাকা নিয়ে যেকোন ওয়েবসাইট বা কোম্পানীর ব্যাপারে আপনার মতামত দিয়ে একটা নিবন্ধ লিখে ফেলুন আপনার ব্লগে। পেড রিভিউ সাইটগুলো কল্যাণে, এখন তারা(কোম্পানী বা ওয়েবসাইটগুলো) আপনাকে তাদের ব্র্যান্ড, পন্য বা ওয়েবসাইটের বিষয়ে লেখার জন্যে অর্থ পরিশোধ করবে। আপনার এই মতামত বা ব্লগ তাদের নিয়ে বাজারে আলোড়ন সৃষ্টি করবে আর তারা পাবে অধিক পাঠক ও ক্রেতা। এরকম একটা জনপ্রিয় পেড্‌ রিভিউ সাইট হচ্ছে-সোস্যালস্পার্ক

২। Affiliate marketing

: এটি একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে কোন পন্যের প্রচার করবেণ আর যখন পন্য বিক্রি হবে, তখন আপনি এর থেকে কমিশন পাবে। এখানে অনেক আধুনিক আর ভালো পন্য আছে যেগুলো বিক্রি করা যায় আর মানুষ কিনতেও আগ্রহী; আপনি একজন এফাইলিয়েট হয়েও কাজ করতে পারবেন। “ক্লিক ব্যাংক”-এর মাধ্যমে একজন এফাইলিয়েট হয়ে পন্য বিক্রয় করতে পারেন।

৩। “ব্যানার” জাতীয় বিজ্ঞাপন বিক্রি করে আয় রোজগার ঃ

যদি আপনার একটা প্রতিষ্ঠিত ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকে, তবে বিজ্ঞাপনদাতারা আপনার ব্লগে তাদের বিজ্ঞাপন দিতে দ্বিধাবোধ করবে না। একেই বলে, ব্যানার এডস্‌ অথবা সরাসরি ইনকামের সুযোগ। ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা যতো বেশি হবে , পাঠক সংখ্যা বাড়বে ততো বেশি হবে আর আপনার আয়ও বাড়তে থাকবে।

৪। Using Facebook and Twitter :

বিজ্ঞাপনদাতাগণ বর্তমানে তাদের ক্যাম্পেইন বা বিজ্ঞাপন উদ্যোগগুলো “টুইটার” বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে চাচ্ছেন। এজন্যে, আপনার কোন ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট থাকারও প্রয়োজন নেই। এমন অনেক কোম্পানী রয়েছে, যারা টুইটার বিজ্ঞাপনের কাজ করে থাকে যেমন- মেগ-এ-পাই। ফেসবুক ও একই।

৫। Microjobs :

microworker and miniuteworkers এর মত অনেক সাইট আছে যে গুলু তে আপনি ছোট কাজ করে ও অনেক বেশি ডলার ইনকাম করতে পারেন। এখানে আপনাকে শুধু sign up and facebook like and comment , servey এর কাজ করতে হবে। যেটা freelancing এর সবচেয়ে সহজ উপায়।

৬। Google adsense: freelancing এ মানুষ অন্যের website এ কাজ করে। তার যদি ওই website এ ২ টাকা ইনকাম না থাকে তা হলে সে আপনাকে fleelancing কাজের জন্যে ১ টাকা দিবে কেন? আপনার নিজের যদি একটি website থাকে এবং ওখানে আপনি নিয়মিত ৩ ঘন্টা কাজ করেন তাহলে ১০০ – ১০০০$ ও মাসে ইনকাম করা সম্ভব।

Comments (No)

Leave a Reply

এই সাইটের কোন লেখা কপি করা সম্পুর্ন নিষেধ