ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহারের টিউটোরিয়াল পার্ট-১।

wordpress md jobayer mahmud

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করা তুলনা মূলক অনেক সহজ।
কারণ এর সহজ এবং ব্যবহার বান্ধব ডিজাইন, মেনু এবং অন্যান্য বৈশিষ্টর কারণে।
আপনি খুব সহজেই ওয়ার্ডপ্রেস শিখে নিতে পারবেন এবং সেই সাথে সহজেই যেকোনো পরিবর্তন, পোস্ট ইত্যাদি করতে পারবেন।
এজন্য আপনাকে কোডিং শিখার ঝামেলাতেও যেতে হবে না।

*.আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কোন কিছু বদলাতে হলে প্রথমে লগইন (Login) করুন।

*.লগইন করার পরে ড্যাশবোর্ড (Dashboard) আসবে যা আপনার প্রধান এডমিনিস্ট্রেটর (Administrator) হোমপেজ (Homepage)

*.ড্যাশবোর্ড ও অন্যান্য সকল পেজের উপরের দিকে আপনার সাইটের নাম (Title) দেখতে পাবেন।

*.যখনি ওয়ার্ডপ্রেসে কোন নতুন সুবিধা যোগ হবে, আপনি তা ‘নিউ ফিচার পয়েন্টার’ হিসেবে দেখতে পাবেন।
এই পয়েন্টারটির নিচে ডিসমিস বাটনে ক্লিক করলে পয়েন্টারটি চলে যাবে।

*.আপনি যদি আপনার সাইটে এডমিনিস্ট্রেটর হিসেবে লগইন করে ঢোকেন, তাহলে স্ক্রিনের (Screen) উপরের দিকে টুলবার (Toolbar) দেখতে পাবেন।
কিন্তু লগইন না করে ঢুকলে দেখতে পাবেন না।
অর্থাৎ আপনার ভিজিটররাও (Visitor) লগইন না করলে এই টুলবারটি দেখতে পাবে না।

wordpress md jobayer mahmud

*.আপনার ব্লগের থিম (Theme) বদল করতে এবং ব্লগ (Blog) কমেন্ট (Comment) দেখতে অথবা এডিট করতে টুলবার অপশনটি খুবই কাজের একটি ফিচার।
এছাড়াও নতুন পোস্ট, পেজ, মিডিয়া (Media) অথবা ইউজার (User) যোগ করতে, কোন পেজ অথবা পোস্ট এডিটকরতে, সাইট সার্চ করতে, নিজের প্রোফাইল দেখতে অথবা এডিট করতে এবং আপনার সাইট থেকে এডমিনিস্ট্রেটর হিসেবে লগআউট করতে এই ফিচারটি (Feature) কাজে লাগে।

*.ওয়ার্ডপ্রেস তৈরি করা হয়েছে মূলতঃ পোস্ট এবং পেজ-এই দুটি ধারণার উপর ভিত্তি করে। পোস্ট হচ্ছে ব্লগ এন্ট্রি।
আর পেজ হচ্ছে স্ট্যাটিক (Static) কনটেন্ট।
পোস্টকে আপনি এর ধরণ অনুযায়ী ভাগ করতে এবং ট্যাগ করতে পারবেন।
কিন্তু পেজে আপনি এই দুটোর কোনটাই করতে পারবেন না।

*.আপনার যদি ব্লগ পোস্টের ফরম্যাট (Format) পছন্দ না হয় তাহলে তা বদলাতে পারবেন।

*.ইমেজ (Image) বাটনের মাধ্যমে আপনি আপনার ইচ্ছেমত ছবি (Photo) অথবা ভিডিও (Video) যুক্তকরতে পারবেন।

Comments (No)

Leave a Reply

এই সাইটের কোন লেখা কপি করা সম্পুর্ন নিষেধ