এসইও শিখে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন? এসইও শিখে টাকা ইনকাম করার সেরা ৫টি উপায়

হ্যালো বন্ধুরা, আজ আমরা শিখবোএসইও শিখে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন?এই বিষয়ে।

মনে করেন আপনি এসইও শিখে ফেলেছেন। এখন আপনি চান আপনার এসইও স্কিল ব্যবহার করে অনলাইনে একটি ক্যারিয়ার গড়তে তাওলে কিভাবে তা করবেন।

অনেক ব্যাক্তিই আছেন যারা এসইও তো শিখে ফেলেছেন, কিন্তু proper গাইড লাইনের জন্য এখনও বেকার আছেন।

কিন্তু ঐ ব্যাক্তিরা যদি proper গাইড লাইন পেতেন তাওলে হয়তো তারা আজ অনেক ভালো জায়গাই কাজ করতে পারতেন।

হতে পারে আপনিও সেই ব্যাক্তি। যে proper গাইড লাইনের জন্য এসইও শিখেও টাকা ইনকাম করতে পারছেন না।

তাই আজকের এই আর্টিকেলটি খুবই মনযোগ দিয়ে পড়বেন। কেননা আমি এই আর্টিকেলে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছিএসইও শিখে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেনএই বিষয়ে।

যাই হোক, আপনি যদি এসইও শিখছে অথবা শিখতে চাইছেন এবং এসইও শিখে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন তাওলে ও আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ুন।

এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি আপনার জীবনে অনেক উন্নত করতে পারবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।

দেখুন, এসইও শিখে টাকা ইনকাম করার অনেক উপায়ই আছে। এবং সেই উপায়ের মধ্যে সবচেয়ে যে ভালো উপায় গুলো আছে আমি সেগুলোই আপনাদেরকে বলব।

SEO (এসইও) কি?

ছোট করে যদি বলি, ধরেন আপনি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন স্কুল ব্যাগ বিক্রি করেন, এখন আপনি চান যেনো কোনো মানুষ যদি googe-এ এসে স্কুল ব্যাগ কেনাকাটা সংক্রান্ত কোনো কিছু লেখা বা সার্চ করে তাওলে যেন সেই ব্যাক্তি আপনার ওয়েবসাইটের নাম যাতে google এর প্রথম পেজে আসে। সেটিকেই মূলত্ব এসইও (SEO) বা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন নামে পরিচিত।

শুধু google’ই নয় আরোও যে সার্চ ইঞ্জিন আছে যেমন, Bing, Yahoo ইত্যাদি সব গুলোই একই ভাবে কাজ করে থাকে।

এই নিয়ম বা পদ্ধতি কাজে লাগিয়ে তথ্য খোঁজার ফলাফলে কনো ওয়েবসাইটকে ওপরে তুলা সম্ভব।

মানে আরোও সহজ করে বললে একজন user যাতে সঠিক তথ্য খুঁজে পান, এবং সেই তথ্যকে সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি করাকেই এসইও বলে।

সেই ব্যাক্তি কি লিখে গুগল বা অন্যন্য অন্যন্য সার্চ ইঞ্জিনে তথ্য চাচ্ছে সেই তথ্য বা keyword ব্যবহার করে এসইও করা এসইও করে র‍্যাংক করতে পারবেন।

আপনি যদি এসইও কি তা বিস্তারিত ভাবে জানতে চান তাওলেএসইও কি? কিভাবে এসইও করবেন?এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

এসইও কিভাবে কাজ করে? (How SEO Works)

এসইও শিখে কাজ করে টাকা ইনকাম করার আগে আপনাকে জানতে হবেএসইও কিভাবে কাজ করে

কেননা আপনি যদি না জানেন যে এসইও কিভাবে কাজ করে তাওলে আপনি কখনও এসইও জগতে (industry) তে সফল হতে পারবেন না।

শুধু এসইও নয়, আপনি যে ফ্লিডেই কাজ করেন না কেন আপনাকে জানতে হবে সেই ফ্লিডটি কিভাবে কাজ (Work) করে তা।

আচ্ছা মেইন পয়েন্টে আসি, এসই ৩ ধাপে কাজ করে থাকে, এবং তা হলো

  • Crawling (ক্রলিং)
  • Indexing (ইন্ডেক্সিং)
  • Ranking (র‍্যাংকিং)

এখন আসা যাক ক্রলিং, ইন্ডেক্সিং এবং র‍্যাংকিং কিভাবে কাজ করে তা বিস্তারিত জানি।

Crawling (ক্রলিং)

ইন্টানেটের সকল বিষয় বস্তু,কন্টেন্ট, URL, ওয়েব ঠিকানা সহ সব কিছু খুঁজে বের করার পদ্ধতিকে ক্রলিং বলে।

যদি ভালো করে না বুজে থাকেন তাওলে এখন আরোও বিস্তারিত করে বলছি, বুজে নিন।

আমরা যারা এসইও (SEO) Expert আছি তারা সকলেই জানি, যখন আমরা আমাদের ব্লগে কোনো পোষ্ট, পেজ, কন্টেন্ট publish করি তখন google, bing এবং অন্যন্য সার্চ ইঞ্জিন bot আমাদের ওয়েবসাইটে আসে।

এবং website এ এসে আমাদের পোষ্ট, পেজকেcrawlকরে। তাকেই ত্রলিং বলে।

ত্রল করা মানে হলো, আপনি যখন একটি পোষ্ট লিখে আপনার ওয়েবসাইটে আপলোড করেন তখন google এর bot বা robot এসে আপনার সেই পোস্টটিকে পড়ে।

Google এর বট (Bot) আপনার content পড়ে বুজে যে আপনার তৈরি করা কন্টেন্টটি কি সম্পর্কে। এটাকেই এসইওর ভাষায় ত্রলিং (Crawling) বলে।

Indexing (ইনডেক্সিং)

Google এর bot যখন আপনার পোষ্টটি পড়ে তারপর সেটিকে google এর সার্ভারে প্রেরন বা পাঠায় সেটিকেই ইনডেক্সিং বলে।

Ranking (র‍্যাংকিং)

Google এর বট প্রথমে আপনার ওয়েবসাইট বা ওয়েব পেজে এসে আপনার ওয়েব পেজটিকে crawl করল। তারপর সেটিকে নিজের সার্ভারে পাঠালো। এখন, যখন কোনো ব্যাক্তি আপনি যে keyword এর মাধ্যমে আপনার পোষ্ট বা আর্টিকেলটি এসইও করেছেন, সেই সম্পর্কে যদি কোনো ব্যাক্তি google সার্চ করে এবং আপনার ওয়েব পোষ্টটি google এর ফাস্ট পেজে র‍্যাংক করে সেটিকেই র‍্যাংকিং বলে।

এসইও শিখে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন?৫টি সেরা উপায়

তো আপনি যদি একজন এসইও এক্সপার্ট হন তাওলে আপনি অনেক উপায়েই অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তবে আমি এই ব্লগে ৫টি উপায়ে কিভাবে এসইও করে টাকা ইনকাম করবেন সেই ব্যাপারে আলোচনা করব।

আপনি যে ৫টি উপায়ে এসইও করে টাকা ইনকাম করতে পারেন সেগুলো:

  • ব্লগিং করে টাকা ইনকাম
  • ফ্রিল্যান্সিং করে মার্কেট প্লেসে কাজ করে টাকা ইনকাম
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম
  • সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এসইও পেশাদার হিসেবে কাজ করে টাকা ইনকাম
  • নিজের অনলাইন ব্যবসা করে টাকা ইনকাম

তো আপনি উপরের এই ৫টি কাজ করার মাধ্যমে এসইও করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

এখন আমি নিচে একেক একেক করে ৫টি কাজ কিভাবে করবেন সেগুলো বলব। তাই পড়তে থাকুন।

১. ব্লগিং করে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন?

আপনি যদি ভালো এসইও করতে জানেন তাওলে ব্লগিং করেও কিন্তু মাসে ৫০০ থেকে ১০০০ ডলার ইনকাম করতে পারেন। এবং এটা খুবই সহজেই করা যেতে পারে।

তার জন্য প্রয়োজন proper এসইও করা। এসইও এর মাধ্যমে আপনি সেটা করতে পারেন.

তার জন্য প্রয়োজন proper এসইও করা। এসইও এর মাধ্যমে আপনি সেটা করতে পারেন।

এমনিতেঅনলাইনে টাকা ইনকাম করার ৩টি ওয়েবসাইটের নামজেনে সেগুলো থেকে ও টাকা ইনকাম অনেক সহজেই করতে পারেন।

ব্লগিং করে মূলত্ব google adsense দ্বারা আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তার জন্য আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে। এবং সেই ওয়েবসাইটে আপনি আর্টিকেল লিখে সেটাকে adsense দ্বাতা approval করে তারপর আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি ভালো এসইও expert হন, তাওলে আপনার ব্লগ আর্টিকেলকে অনেক সহজেই google’হে rank করাতে পারবেন।

এবং যখন মানুষরা আপনার আর্টিকেল পড়বে এবং google এর ad এ ক্লিক করবে, তখন আপনি সেখান থেকে টাকা বা ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

ব্লগিং খুবই সহজেই করা যায়। এবং ব্লগিং করে হাজার হাজার মানুষ তাদের ক্যারিয়ার change করে ফেলেছে।

তাই আপনিও এসইও এর মাধ্যমে ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

আমি তো আর্টিকেল লিখতে পারি না?

আপনি যদি আর্টিকেল লিখতে না পারেন তাওলে কোনো সমস্যা নেই। আপনি অনলাইনে অনেক ফ্রল্যান্সারদের কে পেয়ে যাবেন যারা আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল লিখে দিবে।

আপনি তাদের থেকে আর্টিকেল লেখিয়ে আপনার ব্লগে সেগুলো publish করে এবং এসইও করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

২.ফ্রিল্যান্সিং করে মার্কেট প্লেসে কাজ করে টাকা ইনকাম?

এমনিতে আমি অনেক আগেই একটি ব্লগের মাধ্যমে বলেছি। ফ্রিল্যান্সিং এর কোন কাজে চাহি/দা বেশি। আপনি সেই আর্টিকেল ব্লগটি পড়ে এবং যে কাজের চাহিদা বেশি সেই কাজ শিখেও অনেক টাকা নিয়মিত ইনকাম করতে পারেন।

যাই হোক, আপনি যদি ভালো এসইও জানেন তাওলেফ্রিল্যান্সিং করে মার্কেট প্লেসে কাজ করে টাকা ইনকামও কিন্তু টাকা ইনকাম করতে পারেন।

অনেক ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস আছে যেখানে আপনি ঘন্টার বিনিময়ে কাজ করতে পারবেন।

এর জন্য আপনাকে সেই কোম্পানিতে গিয়ে ও কাজ করতে হবে না। আপনি আপনার ঘরে বসেই সেই কাজ গুলো করে দিতে পারবেন।

অনেক কোম্পানি আছে যারা শুধু keyword researcher খুঁজে বা অন-পেজ এসইও এক্সপার্ত খুঁজে বা অফ-পেজ ও টেকনিক্যাল এসইও এক্সপার্ট খুঁজে।

তো আপনি এসইও এর মধ্যে ও অনেক উপায়ে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

মানে আপনাকে সম্পূর্ণ এসইও জানতে হব না। আপনি যদি এসইও সাব বিষয় গুলোও জানেন তাওলে মাসে ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এখন প্রশ্ন আসে যে কোথায় বা কোন মার্কেটপ্লেস গুলো আছে যেখানে এসইও কাজ পাওয়া যায়?

তো, অনেক ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসই আছে যেখান থেকে আপনারা এসইও জবস বা অন্যন্য অনলাইন কাজ করতে পারেন। সেগুলো:

তো এই ৫টি ফ্রিল্যান্সিং সাইট থেকে আপনারা কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

এছাড়াও আরোও অন্যন্য সাইট আছে যেখান থেকে আপনারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

৩. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম?

এফিলিয়েট মার্কেটিং মানে হলো অন্যের product বা services সেল করা। মানে আপনি আপনার নিজের ওয়েবসাইট বা নিজের বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে অন্য কোনো কোম্পানির কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সেল করাকেই এফিলিয়েট মার্কেটিং বলে।

এখন আপনিএফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকামকিভাবে করবেন? তার জন্য আপনাকে যেকোনো একটি এফিলিয়েট program এ যুক্ত হবেন। যেমন Amazon affiliate program.

তারপর সেখানের যেকোনো product আপনার মাধ্যমে বিক্রি করবেন। এবং এই জন্য amazon আপনাকে কমিশন দিবে।

একটি amazon এর product বিক্রি করে কত টাকা কমিশন পাবেন তা সঠিক বলা সম্ভব না। কারন একেক প্রোডাক্ট এর একেক দাম।

এখন এসইও এর মাধ্যমেএফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন?

এর জন্য আপনাকে একটি নিজের ওয়েবসাইট থাকতে হবে। এবং আপনি সেই ওয়েবসাইটে যে product বা services বিক্রি করবেন সেটি সম্পর্কে একটি বিস্তারিত আর্টিকেল প্রকাশ করবেন। এবং সেখানে সেই প্রোডাক্ট এর এফিলিয়েট link বসাবেন।

এবং এসইও করার মাধ্যমে আপনি সেই product-টি google র‍্যাংক করিয়ে সেখান থেকে ফ্রি ভিজিটর্স এনে সেই product’টি বিক্রি করবেন।

এভাবে মুলত্ব আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে এসইও করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

সেরা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম বা নেটওয়ার্ক কোন গুলো? (১০টি সেরা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর নাম কি কি?)

আপনি যদি এফিলিয়েট করে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে চান তাওলে আপনাকে যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে তা হলো সেরা যে এফিলিয়েট প্রোগ্রাম গুলো রয়েছে সেগুলোর নাম কি?

কেননা আপনি যদি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে চান তাওলে আপনাকে সেরা এফিলিয়েট program এর নাম।

তা না হলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং এ কখনও সফল হতে পারবেন না। তার কারন আপনি যদি না জানেন যে কোন কোম্পানির এফিলিয়েট মার্কেটিং দিয়ে আপনি আপনার এফিলিয়েত যাত্রা শুরু করবেন তা হলে অনেক পিছিয়ে যাবেন অন্যের তুলনাই।

এমনিতে১০টি সেরা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর নাম কি কি?এই নিয়ে আমি আগেই একটি Dedicated ব্লগ publish করেছি।

আপনি যদি এফিলিয়েট মার্কেটিং আগ্রহ ব্যক্তি হোন তাওলে আমার সেই ব্লগটি পড়তে পারেন। আমি বলব বিস্তারিত জানতে সেই ব্লগ বা আর্টিকেলটি পুরোপুরি পড়তে।

৪. সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এসইও পেশাদার হিসেবে কাজ করে টাকা ইনকাম?

আপনি যদি একজন এসইও দক্ষ হন তাওলে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এসইও পেশাদার হিসেবে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

এর জন্য আপনি আপনার দেশের বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উপর নজর রাখেন।

বিভিন্ন নিউস ওয়েবসাইটে চোখ রাখেন। যদি তারা চাকরির অপার দেই তাওলে আপনি সেখানে join হয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

৫. নিজের অনলাইন ব্যবসা করে টাকা ইনকাম?

অবশ্যই পড়ুন:ফেসবুক পেজ কিভাবে খুলব? নতুন নিয়মে ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম।

আপনি যদি ভালো SEO expert হন, তাওলে আপনি কারো সাথে কাজ না করেও টাকা ইনকাম করতে পারেন।

আপনি ভালো এসইও এক্সপার্ট হলে নিজেই নিজের একটি ব্যবসা পরিচালনা করে প্রচুর অর্থ আয় করতে পারেন।

নিজের একটি ব্যবসাকে Local SEO করে সেখান থেকেও টাক ইনকাম করা সহজ।

QNA?

Q: এসইও শিখতে কত দিন সময় লাগে?

এসইও শিখতে কত দিন সময় লাগে সেটা আপনার উপর নির্ভর করে। তবে বেসিক এসইও শিখতে ১ থেকে ২ মাসে সময় লাগে।

এবং আপনি যদি ভালো করে এসইও শিখতে চান তাওলে ১.৫ বছর থেকে ২ বছর সময় লাগতে পারে।

এবং SEO তে মাস্টার হতে আপনাকে ৫ বছর বা ৬০ মাস দিতে হবে। তবে সেটা আপনি আস্তে আস্তে শিখবে।

Q: এসইও শেখা কি কঠিন?

Ans:দেখুন এসইও কোনো রকেট সাইন্স নয় যে শিখা কঠিন হবে। তবে এসইও শিখতে হলে আপনাকে প্রচুর প্ররিশ্রম বা কষ্ট করতে হবে।

প্রচুর আর্টিকেল পড়তে হবে প্রচুর ভিডিও দেখতে হবে। তাই এসইও শেখা কঠিন না তবে কষ্ট দায়ক।

Conclusion

তো বন্ধুরা, আজকের আর্টিকেলএসইও শিখে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেনআপনাদের কেমন লাগল?

এবং আমার দেওয়া ৫টি উপায় আপনাদের কেমন লাগল। যদি আমার এই আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগে থাকে তাওলে এই আর্টিকেলটি আপনার বন্ধুদের সাথে share করবেন।

আর আজকের এই আর্টিকেলের সাথে জড়িত যেকোনো প্রশ্ন জানতে চাইলে কমেন্ট করে ফেলুন।

বাংলা টেক অনলাইনের আর্টিকেল পড়ুন:

টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার সেরা ও কার্যকরি উপায়?

Comments (No)

Leave a Reply

এই সাইটের কোন লেখা কপি করা সম্পুর্ন নিষেধ